তিনজন টগবগে তরুণ কি খেয়ালের বসে কার্টুন নির্মাণ করতে বসে গেল সে ভাবনা শুধু তারাই বলতে পারে। আর সেই ভাবনাকে বাস্তবে রূপ দেয়ার জন্য প্রযুক্তিগত যে অবকাঠামো তার সবই নির্মাণ করেছে বাংলাদেশের এই প্রযুক্তিনির্ভর প্রযুক্তিবিদরা। যে ভাবা সেই কাজ। করলও তাই। এদিক-ওদিক না তাকিয়ে শ্রেফ কার্টুন নির্মাণ করতে বসে গেল। চকডাস্টের এমডি ইমরান চৌধুরী তার স্বপ্ন বিলাস নিয়ে বলেন, তারা বিভিন্ন পেশার লোক হয়েও দেশের সব শ্রেণীর মানুষের জন্য বিশেষ করে ছোট্ট সোনামনিদের জন্য আন্তর্জাতিক মানের কার্টুন তৈরি করতে চায়। আর সেই লক্ষ্যে চলছে নানা ধরনের বিশ্লেষনাত্মক কাজ। কেউ চরিত্র নির্মাণে ব্যস্ত , কেউ এনিমেশন তেরিতে ব্যস্ত কেউ বা ব্যস্ত সংলাপ নির্মাণে। তিনি আরও বলেন, এই প্রকল্প নির্মাণে আসতে পারে বাধা আর তাছাড়া এখনও এতবড় বিনিয়োগ করে কেউ এই রকম প্রকল্প হাতে নেয়নি। দেশে যতটুকু কাজ হয় তার সবটুকু কাজ করতে হয় বিদেশীদের চাহিদার ওপর নির্ভর করে। সোজা কথায় তিনি আরও জানায় যে, তার সবটুকু সঞ্চয় দিয়ে এই কোম্পানি দাঁড় করিয়েছেন। বিশেষ কিছু চাইবার নেই কারও কাছে, কিছু করতে হবে, কিছু দিতে হবে দেশকে আর সেই অনুপ্রেরণা নিয়েই এই কাজে নেমেছি আমরা। পরিচালকদের মধ্যে একজন সাইফুল ইসলাম সোহান, যিনি চকডাস্টের ফিন্যান্স ডিরেক্টর অন্যজন রাহমানুল হক, রনো, তিনি অপারেশনটা দেখছেন । তিনজনই খুবই চঞ্চল ও স্বপ্নবাজ।

 

নিজেদের অফিসটাও সাজিয়েছেন এ্যানিমেশন অফিসের আদলে। অফিসের দেয়ালে শোভা পাচ্ছে পৃথিবীখ্যাত জনপ্রিয় এনিমেশন চরিত্র। এছাড়াও চকডাস্ট তাদের কর্মী নিয়োগে নিয়ে এসেছে নতুনত্ব। বুদ্ধিপ্রতিবন্ধী মেধাবীরাও কাজ করছেন এই দলে। যেন সব মিলে এক দুর্দান্ত ছুটন্ত দল। মজা করা আর হাসিঠাট্টার মধ্যদিয়ে পরিচালানো হচ্ছে নানা ধরনের গবেষণা। চলছে গ্রুপ ডিসকাশন। হৈহুল্লুর লেগেই আছে সারাক্ষণ। যেন সব কমিক চরিত্র। পিসিতে বসে কেউ দিচ্ছে নির্দেশনা দিচ্ছে আবার কেউ শব্দ মিশ্রণ করছে। চকডাস্টের ফিন্যান্স ডিরেক্টর সাইফুল ইসলাম সোহান তার নিজের মতো করে বলেন, তাদের তৈরি করা প্রকল্প আর বিভিন্ন কাজ প্রকাশিত হয় নিজেদের ইউটিউব চ্যানেলে আর ফেসবুক পেইজে। কার্টুন আর এ্যানিমেশন নির্মানে সব থেকে যে বিষয়টি নজর রাখা হয় সেটা হলো সবার ভাললাগবে এমন একটি ঐতিহাসিক চরিত্র। যেটা নিয়ে চলছে আমাদের নিরন্তন গবেষণা । এছাড়াও বিশ্ব নন্দিত চরিত্রগুলোর পাশাপাশি রেখে চলছে গ্রুপ ডিসকাশন। হয়ত এর মধ্য থেকে বেড়িয়ে আসবে আমাদের স্বপ্নের চারিত্রের ভার্চুয়াল রূপ। এখন যেমন অন্য দেশের কার্টুন চরিত্রগুলো আমাদের ছোট্ট বন্ধুরা চোখের পাতা না ফেলে দেখে। একদিন এই দেশের তৈরি করা কার্টুন দেখবে সারা বিশ্বের ছোট্ট বন্ধুরা। যেন এক স্বপ্নের ফানুস মেলে ধরেছে চকডাস্ট। যে কারও গর্বে ভরে যাবে এসব স্বপ্নবাজদের কল্পনা আর সম্ভাবনার কথা শুনে।

SD Asia Desk