মোবাইল অ্যাপ্লিকেশন মায়া আপা’য় বিনিয়োগ করছে ব্র্যাক। ব্র্যাকের আরবান ডেভেলপমেন্ট কর্মসূচি একটি পাইলট প্রোজেক্টে এই অ্যাপের মাধ্যমে গার্মেন্টস কারখানার ৫০ হাজার নারীশ্রমিককে সেবাদান করবে।

‘মায়া আপা’ হচ্ছে বিভিন্ন বিষয়ে পরামর্শ চাওয়ার এমন একটি ব্যবস্থা, যেখানে যে কেউ নিজের নাম-পরিচয় গোপন রেখে প্রশ্ন করতে পারেন দিনরাত ২৪ ঘণ্টা। এর মাধ্যমে স্বাস্থ্যসংক্রান্তসহ বিভিন্ন মনো-সামাজিক এবং আইনি সমস্যা সমাধানের পরামর্শ পাওয়া যায়। কেউ প্রশ্ন পাঠালে সঙ্গে সঙ্গে তা সংশ্লিষ্ট বিশেষজ্ঞদের প্রোফাইলে চলে যায় এবং সর্বোচ্চ ৩ ঘণ্টার মধ্যে তারা এর জবাব দেন। পরিসংখ্যানে দেখা যায়, ২০১৫ সালের ফেব্রুয়ারি মাসে মায়া আপার যাত্রা শুরুর পর থেকে এখন পর্যন্ত এই প্লাটফর্মে প্রায় দেড় লাখ প্রশ্ন করা হয়েছে। বর্তমানে প্রতিদিন ১০ হাজারেরও বেশি মানুষ এই অ্যাপ ব্যবহার করছে।

উদ্বোধনী অনুষ্ঠান উপলক্ষে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে  প্রধান অতিথি ছিলেন ডাক ও টেলিযোগাযোগ প্রতিমন্ত্রী তারানা হালিম। ব্র্যাক-মায়া আপার এই যৌথ উদ্যোগে দেশের অসংখ্য মানুষ ঘরে বসেই প্রয়োজনীয় পরামর্শ পাবেন এই আশাবাদ ব্যক্ত করে প্রধান অতিথি তারানা হালিম বলেন, টেকসই উন্নয়নের লক্ষ্যে পৌঁছাতে তথ্য-যোগাযোগ ও প্রযুক্তি যে অনন্য ভূমিকা রাখতে পারে, আজকের আয়োজনটি তার উজ্জ্বল দৃষ্টান্ত।

এখানে প্রশ্ন করতে শুধু একটি মোবাইল নম্বরই যথেষ্ট, তবে কেউ চাইলে ইমেইল ঠিকানা ব্যবহার করেও প্রশ্ন করতে পারেন। ফলে ব্যবহারকারীরা খুব সহজেই তাদের গোপনীয়তা বজায় রাখতে পারেন। আজ পর্যন্ত এই সেবা ব্যবহারকারীর মধ্যে ৬০ শতাংশ নারী এবং ৪০ শতাংশ পুরুষ। যে কোন ধরনের অ্যান্ড্রয়েডভিত্তিক স্মার্টফোন অ্যাপ, ওয়েব এবং এসএমএসেও এ সেবাটি পাওয়া যায়। এর মাধ্যমে বাংলাদেশের শহুরে এবং গ্রামীণ মানুষের কাছে তথ্য ও পরামর্শ পৌঁছে দেওয়া সম্ভব। https://goo.gl/LTW2OA লিংকটি ডাউনলোড করে যে কেউ এই সেবা নিতে পারবেন।

SD Asia Desk