বাংলালিংকের মূল কোম্পানি ভিম্পেলকমের সিইও জেন-ইভস চার্লিয়ার জানান, বাংলাদেশে ই-কমার্স খাতে আসতে যাচ্ছে অপারেটরটি। গ্রাহকদেরকে ডিজিটাল স্পেসে আরও শক্তভাবে অবস্থানের জন্যেই তারা এখন ই-কমার্সকে লক্ষ্য করে কাজ শুরু করেছে।

সংবাদ সম্মেলনে বাংলালিংকের সিইও এরিক আস জানান, গ্রাহকরা কয়েক মাসের মধ্যেই নিজেদের ফোনে থাকা ব্যালেন্স নিয়ে কেনাকাটা করতে পারবেন।

২০১৬ সালের ২৩ ফেব্রুয়ারি অপারেটরটি নিজেদের ডিজিটাল রূপান্তরের আনুষ্ঠানিক ঘোষণা দেয়ার পর থেকে এখন প্রায় ৪০ ধরনের ডিজিটাল সার্ভিস চালু করেছে অপারেটরটি। ডিজিটাল সার্ভিসের মধ্যে মোবাইলে মুভি, কাউন্সেলিং সেবা, অনলাইনে বই পড়ার সেবা দিয়ে যাচ্ছে অপারেটরটি।

গ্রাহকদের দৈনন্দিন কার্যক্রমের বড় অংশ এখন হচ্ছে অনলাইনে। আর এসব ডিজিটাল সেবা দিতেই কোম্পানিটি পুনর্গঠন করা হচ্ছে বলেও জানালেন এরিক।

SD Asia Desk