জুমলাভিত্তিক ওয়েব কোম্পানিগুলোর মধ্যে বিশ্বে শীর্ষ চারটি কোম্পানির একটি হিসেবে স্থান পেয়েছে বাংলাদেশের  জুমশেপার।ইন্টারনেটে ওয়েবসাইট বানানোর একটি কনটেন্ট ম্যানেজমেন্ট সিস্টেম বা বিষয়বস্তু ব্যবস্থাপনা পদ্ধতির নাম জুমলা।এর মাধ্যমে ওয়েবসাইটে বিভিন্ন ধরনের বিষয় প্রকাশ করা যায়।বর্তমানে বিশ্বে রকেটথিম, উথিম এবং জুমলার্ট মার্কেটপ্লেসের পরই জুমশেপারের অবস্থান।

ওয়েব সাইটের বিভিন্ন টেমপ্লেটও বানায় জুমশেপার। নতুন ওয়েবসাইট বানানোর সময় অনেকেই সময়, শ্রম ও অর্থ সাশ্রয়ের জন্য এই টেম্পলেট ব্যবহার করেন। বিভিন্ন ‘মার্কেটপ্লেস’ থেকে এই টেম্পলেট কিনতে পাওয়া যায়।

২০১০ সাল থেকে জুমশেপারের সিইও কাওসার আহমেদ এই জুমলা টেম্পলেট বানানোর কাজ শুরু করেন। আর অন্য কোনো ক্রয়বিক্রয় ওয়েবসাইট (মার্কেটপ্লেসে) সেটি বিক্রি না করে নিজেই জুমশেপার –www.joomshaper.com নামে একটা ক্রয়বিক্রয় ওয়েবসাইট তৈরির কাজ শুরু করেন।

জুমশেপারে এখন ৮৮টি জুমলা টেম্পলেট আছে এবং প্রতিমাসে একটি করে নতুন টেম্পলেট যুক্ত হচ্ছে। সেখান থেকে ৫৯ থেকে ২৯৯ ডলারের তিন রকমের সদস্য হয়ে টেম্পলেট কিনে ডাউনলোড করতে পারেন। এসব টেম্পলেট এ পর্যন্ত ৪৫ লাখের বেশি ডাউনলোড হয়েছে। কাওসারের কোম্পানির সুনাম ছড়িয়ে পড়ছে দেশ থেকে দেশে। ১১-১৩ নভেম্বর কানাডার ভ্যাঙ্কুভারে অনুষ্ঠিত হবে জুমলা ওয়ার্ল্ড কনফারেন্স ২০১৬, যার গোল্ড স্পন্সর জুমশেপার।

জুমলার পাশাপাশি ওয়ার্ডপ্রেসের থিম বিপণনের জায়গা থিমিয়াম –http://www.themeum.com ও  ২০১৫ সালের জুন মাসে এইচটিএমএল  টেমপ্লেটের জন্য মার্কেটপ্লেস শেপবুটস্ট্র্যাপ –https://shapebootstrap.net ও বানিয়েছে তারা।

 

SD Asia Desk