অ্যাপ স্টোর থেকে আমরা অনেক অ্যাপই ব্যবহার করার জন্য নামিয়ে নেই। কিন্তু হয়তো জানি না যে এসব অ্যাপ আপনাকে না জানিয়েই আপনার সব তথ্য চুরি করে নিয়ে যাচ্ছে। সম্প্রতি ম্যাসাচুসেটস ইন্সটিটিউট অব টেকনোলজি (এমআইটি), হাভার্ড ও কার্নেগী মেলন ইউনিভারসিটির গবেষকরা এমন ভয়ঙ্কর তথ্য জানিয়েছে।

তাদের দেয়া তথ্য মতে, স্মার্টফোনে ব্যবহৃত অ্যাপগুলোর মাধ্যমে ব্যবহারকারীর উপর নজরদারী চালায় তৃতীয় একটি পক্ষ।গবেষণায় দেখা গেছে গুগলের মোবাইল অপারেটিং সিস্টেম এর অ্যান্ড্রয়েড অ্যাপগুলোর ৭৩ শতাংশই ব্যবহারকারীর ইমেইল শেয়ার করে থেকে।

তিন বিশ্ববিদ্যালয়ের গবেষকরা টেক জায়ান্ট অ্যাপল ও সার্চ জায়ান্ট গুগলের অ্যাপ্লিকেশন স্টোর থেকে ১১০টি অ্যাপ নিয়ে গবেষণা চালিয়েছে।অ্যাপলের আই স্টোরের ক্ষেত্রে আইওএস অ্যাপের ৪৭ শতাংশ ব্যবহারকারীর লোকেশন ডাটা শেয়ার করে থেকে।গুগল প্লে স্টোর ও অ্যাপল আই স্টোর মিলে গবেষণায় পাওয়া এমন অ্যাপের সংখ্যা কমপক্ষে ৫৫টি বলে জানিয়েছে গবেষকরা।এদিকে, মানবাধিকার সংস্থা প্রাইভেসি ইন্টারন্যাশনাল জানিয়েছে ব্যবহারকারীদের সঙ্গে অ্যাপ তৈরি করা প্রতিষ্ঠানগুলোর বিশ্বাসঘাতকতার আরো অনেক প্রমাণ তাদের কাছে আছে।

গবেষণার তথ্য আসলেই অনেক চিন্তার বিষয় হয়ে দাঁড়িয়েছে। এ অ্যাপগুলোর মধ্যে অ্যান্ড্রয়েড অ্যাপ গড়ে ৩ দশমিক ১ টি থার্ড পার্টি ডোমেইনে স্পর্শকাতর ডাটা পাঠিয়ে থাকে। আর আই স্টোরের ক্ষেত্রে এর পরিমাণ ২ দশমিক ৬টি।অ্যান্ড্রয়েডের ক্ষেত্রে ব্যবহারকারীর নামের তথ্য নিচ্ছে ৪৯ শতাংশ অ্যাপ, ঠিকানা নিচ্ছে ২৫ শতাংশ অ্যাপ। আইওএস –এর ক্ষেত্রে নাম শেয়ার করছে ১৮ শতাংশ আর ইমেইল ঠিকানা শেয়ার করছে ১৬ শতাংশ অ্যাপ। আইওএস ব্যবহারকারীর অবস্থান ১৭টি থার্ড পার্টি ডোমেইনে পাঠিয়ে থাকে।