তথ্য ফাঁস হয়েছে নকিয়ার নতুন অ্যান্ড্রয়েড ফোনের।অ্যান্ড্রয়েড অপারেটিং সিস্টেমনির্ভর স্মার্টফোন সি১ তৈরির মাধ্যমে আবার মোবাইল ফোনের বাজারে ফিরে আসবে নকিয়া।

Nokia_c1_Leak

তবে নকিয়ার নাম ব্যবহার করে স্মার্টফোন তৈরি করতে হলে তাঁকে ২০১৬ পর্যন্ত অপেক্ষায় থাকতে হবে।২০১৬ সালে মাইক্রোসফটের সঙ্গে চুক্তি শেষ হওয়ার পর নতুন স্মার্টফোনের নকশা ও ব্র্যান্ড লাইসেন্স দিতে শুরু করবে নকিয়া কর্তৃপক্ষ। কারণ নকিয়ার সঙ্গে মাইক্রোসফটের যে চুক্তি তাতে ওই সময়ের আগ পর্যন্ত নকিয়া নিজের ব্র্যান্ডের কোন মোবাইল ফোন বাজারে আনতে পারবে না। তবে বাজারে ফেরার জন্য নকিয়ার প্রস্তুতি চলছে জোরেশোরেই।

 

নকিয়ার সূত্র উল্লেখ করে এক চীনভিত্তিক সাইট দাবি করেছে, পাঁচ ইঞ্চি মাপের স্মার্টফোনটি হবে ফুল এইচডি ডিসপ্লের। এতে অ্যান্ড্রয়েডের সর্বশেষ সংস্করণ মার্সম্যালো ব্যবহৃত হবে। এতে থাকবে ইনটেলের অ্যাটম প্রসেসর। চীনের বাজারে নকিয়া ব্র্যান্ড নাম দিয়ে অ্যান্ড্রয়েড অপারেটিং সিস্টেমনির্ভর এন ১ নামের ট্যাবলেট কম্পিউটার বাজারে ছেড়েছে প্রতিষ্ঠানটি। এ ছাড়াও নকিয়ার ‘পুনর্জন্ম’ হিসেবে ‘ভারচুয়াল রিয়েলিটি ক্যামেরা’ উন্মুক্ত করেছে।

 

স্মার্টফোনের উত্থানের যুগে কিছু ভুল পদক্ষেপের কারণে অ্যাপল ও স্যামসাংয়ের মতো প্রতিষ্ঠানের কাছে বাজার হারিয়েছিল এক সময়ের বিশ্বের বৃহত্তম মোবাইল নির্মাতা প্রতিষ্ঠান নকিয়া। ২০১৩ সালের শেষ দিকে এসে মাইক্রোসফটের কাছে মোবাইল ফোন বিভাগটি বিক্রি করে দিয়ে টেলিকম নেটওয়ার্কিং যন্ত্রপাতির ব্যবসায় মনোনিবেশ করেছিল

নকিয়া ইতিমধ্যে বাজারে ফেরার লক্ষ্য বাস্তবায়নে অনেকটা এগিয়ে গেছে। ইতিমধ্যে শুধু হার্ডওয়্যার নয়, নকিয়া এখন সফটওয়্যারকেও গুরুত্ব দিচ্ছে। অ্যান্ড্রয়েড অপারেটিং সিস্টেমের জন্য স্মার্টফোনে কনটেন্ট ব্যবস্থাপনার অ্যাপ ‘জেড লঞ্চার’ উন্মুক্ত করেছে প্রতিষ্ঠানটি।

স্মার্টফোনের বাজারে আইফোনের সঙ্গে পেরে না উঠে ২০১৪ সালে মোবাইল ফোন বিভাগটি মাইক্রোসফটের কাছে বিক্রি করে দেয় নকিয়া। পরে তাইওয়ানের ফক্সকনকে অ্যান্ড্রয়েডনির্ভর ট্যাবলেট তৈরির ব্র্যান্ড লাইসেন্স দেয় প্রতিষ্ঠানটি।এখন অ্যান্ড্রয়েড ফোন এনে আবারও বাজারের এক নম্বর ব্র্যান্ড হতে চায় তারা।