বর্তমান যুগে জনপ্রিয় হয়ে যাচ্ছে অর্গানিক ফার্মিং। খাবারে ফরমালিন এবং বিষাক্ত উপাদান মিশ্রিত হয়ে যাওয়ায় এখন আমরা প্রায় সবাই বিভিন্ন রোগ বালাই দ্বারা আক্রান্ত হচ্ছি। তাই বাজারে যাওয়ার সময় এখন ক্রেতাদের মধ্যেও প্রবণতা থাকে ফরমালিন মুক্ত খাবার কেনার জন্য।

 

এসব কথা মাথায় রেখেই ডাইরেক্ট ফ্রেশ গ্রাহকদের জন্য সবচেয়ে বিশুদ্ধ খাবার পৌঁছে দিতে প্রতিজ্ঞাবদ্ধ। গ্রাহকদের ঘরের দরজায় ক্যামিকেল মুক্ত এবং তরতাজা খাবার সরবরাহ করে আস্থার প্রতিদান দিতে চায় তারা।ফ্রেশ এন্ড সেফ এগ্রো লিমিটেড নামে অর্গানিক কৃষকদের সাথে একটি নেটওয়ার্ক স্থাপন করে চলছে তারা। এসেনশিয়াল পেরিশেবল নামে একটি মাধ্যম ব্যবহার করে রেস্টুরেন্ট এবং হোটেলের বিজনেস ক্লায়েন্টদের সাথে সুসম্পর্ক রেখে যাচ্ছে তারা।এসডি এশিয়ার সাথে ডাইরেক্ট ফ্রেশের সহ প্রতিষ্ঠাতা মিশেল করিমের আলাপচারিতায় উঠে আসে বিটুবি মার্কেটিংয়ের মাধ্যমে কিভাবে উপক্রিত হচ্ছে গ্রাহকরা।

 

mishal-karim1

প্রশ্ন- বিটুবি অ্যারেঞ্জমেন্ট, ফ্রেশ এন্ড সেফ এগ্রো লিমিটেড এবং এসেনশিয়াল পেরিসেবলস সবকিছু কিভাবে একসাথে করেন?এসব কিভাবে আপনার সাপ্লাই চেনের উপর প্রভাব ফেলছে?

 

উত্তর- গ্রাহকদের কাছে সতেজ শাকসবজি পৌঁছে দিতে আমরা সবসময়ই প্রতিজ্ঞাবদ্ধ। ফ্রেশ এন্ড সেফ এগ্রো লিমিটেড এবং এসেনশিয়াল পেরিসেবলস সবকিছুর সমন্বয় করে সর্বোচ্চ সেবা নিশ্চিত করাই আমাদের লক্ষ্য। ফ্রেশ এন্ড সেফ এগ্রো লিমিটেডের আওতায় মানিকগঞ্জের এক গ্রামে কৃষকদের নেটওয়ার্ক স্থাপন করেছি আমরা। এবং নিয়মিত অর্গানিক ফার্মিং মনিটরও করে থাকি আমরা।

 

মানিকগঞ্জের অর্গানিক চাষ করা কৃষকদের জন্য আলাদা দোকান রয়েছে।সেখান থেকে অর্গানিক বীজ, সার থেকে শুরু করে সব সবই দেয়া হয়ে থাকে।

 

সেখান থেকে পণ্য সারসরি আমাদের গোডাউন গাবতলিতে চলে আসে।এবং গাবতলি থেকে সব পণ্য সরাসরি ক্রেতাদের কাছে পৌঁছে দেই আমরা।

সম্প্রতি আমরা প্রোজেক্ট ক্যাটালিস্ট থেকে ২৮ লাখ টাকা জিতে নিয়েছি সাসটেইনেবল সাপ্লাই চেন এবং ঢাকায় নিরাপদ খাদ্য পৌঁছে দেয়ার জন্য। এই টাকা আমরা আমাদের ব্যবসাকে আরও বাড়িয়ে নেয়ার জন্য ব্যয় করব।

 

প্রশ্ন- এই ব্যবসা চালাতে গিয়ে কি কি সমস্যা মোকাবেলা করতে হয়েছে আপনাদের?

 

উত্তর- কৃষকদের সাথে দীর্ঘমেয়াদী কাজ করার জন্য বিশ্বস্ততা অর্জন করতে যেয়ে অনেক ঝামেলা পোহাতে হয়েছে। কৃষকদের সাথে কাজ করে আমাদের ব্যবসাকে চালাতে যেয়েও কোঠর পরিশ্রম করতে হয়েছে।

 

প্রশ্ন-অর্গানিক ফার্মিংয়ের ক্ষেত্রে বিটুবি মার্কেটিংয়ের ভিন্নতা কেমন?

উত্তর- বাংলাদেশে আমরাই প্রথম বিশুদ্ধ খাবার নিয়ে এমন কোন উদ্যোগ হাতে নিয়েছি। গ্রাহকদের কথা মাথায় রেখে আমরা বিশুদ্ধ খাবার সরবরাহ নিয়ে কাজ করে যাচ্ছি। ফিনান্স ডিপার্টমেন্ট এসব কিছুকে একসাথে মিলিয়ে আমাদের ব্যবসাকে চালিয়ে যাচ্ছি।

 

এমনকি আমরা আমাদের ফার্ম দেখতে আসার জন্য সব গ্রাহকদের আমন্ত্রণ জানাচ্ছি।

প্রশ্ন- এই ব্যবসা থেকে কৃষকরা কিভাবে লাভবান হচ্ছে?

উত্তর- সয়েল টেস্টিং থেকে শুরু করে কৃষকদের পণ্য সরবরাহ সবই করে থাকি আমরা। মানিকগঞ্জের বিস্তৃত এলাকা জুড়ে চাষাবাদ করতে দুই হাজার কৃষকদের ট্রেনিং দিয়েছি আমরা।

ঢাকা থেকে শুরু করে বিভিন্ন স্থানে এসব কৃষকদের তৈরি করা ফল, শাকসবজি সরাসরি গ্রাহকদের কাছে পৌঁছে দেয়া হয়।

 

এই প্রোজেক্টের মাধ্যমে কৃষকদের উৎপাদন করা পণ্য এখন আর অবিক্রীত থাকবে না। সেই সাথে কৃষকরা তাদের পণ্য উৎপাদনের লাভ ক্ষতি সম্পর্কেও হিসাব রাখতে পারবে।

 

তাছাড়া কৃষকদের জন্য সয়েল টেস্টিং, শস্য বাছাই করা এবং খাবারের নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে অনেক বেশী সাহায্য করবে এই প্রোজেক্ট।

 

প্রশ্ন- আপনাদের বিটুবি কাস্টমার হোটেল এবং রেস্টুরেন্টের গ্রাহকরা কিভাবে উপক্রিত হবে?

 

উত্তর- বাংলাদেশে যেসব খাবার বিক্রি হয় এতে উচ্চমানের ফরমালিন এবং দুষিত ক্যামিকেল ব্যবহার করা হয় এ সম্পর্কে আমরা প্রায় সবাই জানি।কৃষকরাও না জেনে বুঝে অনেক বেশী ক্যামিকেল ব্যবহার করছে। তাই বিশুদ্ধ খাবার খুঁজে বের করাও খুব কষ্টকর ব্যাপার।

 

তাছাড়া বাংলাদেশের বিভিন্ন এলাকা থেকে খাদ্য সামগ্রী এসে জড় হয় কারওয়ান বাজারে। সেখান থেকে এসব পণ্য ঢাকার সব বাজারে চলে যায়। তাই কোন পণ্যটি কোথায় উৎপন্ন হয়েছে এবং কিভাবে উৎপন্ন হয়েছে সে সম্পর্কে আর কোন ধারনাই পাওয়া যায় না।

 

সেদিক থেকে ডাইরেক্ট ফ্রেশ নিজেদের পণ্য নিজেদের তত্ত্বাবধানে পরিবহন করে ক্রেতাদের কাছে পৌঁছে দেয়ার কাজ করে থাকে। তাই ক্রেতারা নির্ভেজাল ভাবে আমাদের পণ্য পেতে পারেন।

 

প্রশ্ন- বিটুসি কনসিউমারদের জন্য এই সেবা কিভাবে কাজে আসবে?

উত্তর- গ্রাহকদের সর্বোচ্চ সেবা নিশ্চিত করার জন্য কাজ করে যায় ডাইরেক্ট ফ্রেশ।বিটুসি কনসিউমাররা এখন থেকে জানতে পারবে তাদের কেনা খাবারটি একটি বিশ্বস্ত সূত্র থেকে কেনা।

 

অনেক হোটেল এবং রেস্টুরেন্টের সাথে আমাদের চুক্তি রয়েছে। তাই তারা সুবিধাজনক দামে আমাদের পণ্য কিনে নেবে। তাছাড়া আমরা ফ্রান্স এবং থাইল্যান্ড থেকে অনেক ফল কিনে নিয়ে আসি যেগুলোর ক্রেতাও খুব নির্দিষ্ট।

 

তবে যাই হোক আমাদের বিটুবি এবং বিটুসি সব ক্রেতারাই নিশ্চিত থাকতে পারবে যে, তারা সর্বোচ্চ সেবাই পেতে যাচ্ছে।

 

ডাইরেক্ট ফ্রেশ সম্পর্কে আরও বেশী কিছু জানতে চাইলে ভিজিট করুন, www.directfreshbd.com     

Tousif Alam