নতুন চাকুরীতে যোগদান করার পরপরই কোন কাজ রেখে কোন কাজ করবেন অনেকেই তা বুঝে উঠতে পারেন না। আবার অনেকেই চাকুরীর শুরুতেই এমন কিছু ভুল করে বসে যাতে করে পরবর্তীতে কাজের ক্ষেত্রে সমস্যা তৈরি হতে পারে। তাই অফিসে কাজ শুরু করার প্রথম মাস থেকেই একটু মাথা খাটিয়ে কাজ করতে পারেন।

 

সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ কাজটি আগেই শেষ করতে হবে,

অফিসের কাজের সময় সবার আগেই গুরুত্বপূর্ণ কাজগুলো শেষ করে ফেলতে হবে। এতে করে আপনার প্রতি ভাল ধারণা পেয়ে যাবে সবাই।শুরুতেই যদি ভাল ভাল কাজের নমুনা দেখাতে পারেন তবে আপনার প্রতি ভাল একটা ধারণা পাবে সবাই।

 

কাজের ধরন বুঝে কর্মীদের কাছে সাহায্য চাইতে হবে,

শুরুতেই অনেক সময় অফিসের কাজ সম্পর্কে কোন ধারণা পাওয়া যায় না। তাছাড়া অভিজ্ঞতা না থাকায় কাজ করার সময় অনেক সমস্যায় পড়তে হয়। তাই কাজ বুঝতে হলে সহকর্মীদের সাহায্য চাইতেই হয়। কিন্তু অনেক সময় অনেক সহকর্মী সাহায্য না করে বরং হাসা হাসি করতে থাকে। তাই আগে থেকেই কাজের ধরন বুঝে সহমর্মী সহকর্মীদের কাছ থেকে পরামর্শ চাইতে পারেন।

সাফল্য পাওয়ার উপায় খুঁজতে হবে,

যেই কাজ করে সহজে সাফল্য পাওয়া যাবে সেই কাজ খুঁজে খুঁজে করতে হবে। এতে করে সবাই আপনার দক্ষতা সম্পর্কে জানতে পারবেন। বিভিন্ন কাজে পারদর্শী হিসেবে নিজেকে প্রকাশ করতে হবে।

 

আপনার প্রতি কি কি কাজের দায়িত্ব রয়েছে সেগুলো শেষ করা,

 

সবার আগে আপনার নিজের উপর দায়িত্বপ্রাপ্ত কাজটুকু শেষ করতে হবে। কারণ আপনার উপর অর্পিত দায়িত্বগুলো শেষ না করলে কোনভাবেই অফিসের বস আপনার কাজে সন্তুষ্ট হতে পারবে না। সেজন্য প্রথমেই আপনার কাজ শেষ করতে হবে।

 

প্রতিষ্ঠানের কালচার এবং ধরন সম্পর্কে বুঝতে হবে,

 

সবার আগে গুরুত্ব দিতে হবে প্রতিষ্ঠানের নিজস্ব কালচারের উপর। এক একটি অফিসের কাজের ধরন এবং স্টাইলে অনেক পরিবর্তন রয়েছে। তাই ক্ষেত্র বিশেষে অফিসের স্টাইলের সাথে পাল্লা দিতে হলে নিজস্বতা বিসর্জন দিয়ে অফিসের স্টাইলের মত কাজ করতে হবে। নতুন কোম্পানির স্টাইলের সাথে মিলিয়ে কাজ করতে হবে।

 

নিজের মেধা এবং আত্মবিশ্বাসকে কাজে লাগাতে হবে,

 

সবসময়ই মনে রাখতে হবে আপনি মেধাবী বলেই কাজ করার সুযোগ পেয়েছেন। তাই নিজের মেধাকে কাজে লাগিয়ে অফিসের কাজগুলো শেষ করতে হবে। আত্মবিশ্বাসী মানুষ সবার আগে কাজে সফল হতে পারে। তাই নিজের উপর আস্থা রাখতে হবে। নিজের প্রতি আস্থা থাকলে কাজেও সাফল্য আসবেই। একবার ব্যর্থ হলেও মনোবল দৃঢ় থাকলে পরবর্তীতে সফল হওয়ার সম্ভাবনা অনেক বেড়ে যায়।

 

সঠিক ঘুম এবং বিশ্রাম নিতে হবে,

 

কাজের ফাঁকে কিছু সময়ের জন্য বিরতি নিয়ে বিশরাম নিতে হবে।সকাল থেকে ফ্রেশ মাথায় কাজ করতে হলে রাতে বেলায় কমপক্ষে সাত ঘণ্টা ঘুমানোর দরকার। তাই কাজ এবং বিভিন্ন ব্যস্ততার মাঝেও নিজের শরীরের দিকে খেয়াল রাখতে হবে। শরীর ঠিক রাখতে হলে সবার প্রথমে ভালভাবে ঘুম এবং বিশ্রাম নিতে হবে।

Tousif Alam