মহাখালীর প্রচণ্ড জ্যামে বসে আসেন, কিন্তু বাংলাদেশের ক্রিকেট ম্যাচ কিংবা ইংলিশ প্রিমিয়ার লীগের জমজমাট ডার্বি ম্যাচ চলছে।চাইলেই হেডফোন কানে লাগিয়ে লাইভ রেডিও আপডেট শুনতে পারেন সে সময়।কিন্তু তাতেই কি মন ভরে? আফসোস করছেন ‘যদি বাসায় থাকতাম, তাহলে দেখতে পারতাম’ এই ভেবে?মোবাইলেই যদি লাইভ টিভি দেখা যেত তাহলে আর এই আফসোস থাকতো না।লাইভ টিভি দেখার আফসোস মেটাবে বাংলাদেশের কাকতাড়ুয়া ডেভেলপার্স। ‘লাইভ টিভি ওয়ার্ল্ড’নামে এই অ্যাপ্লিকেশনটি মোবাইল ফোন, ডেস্কটপ এবং অন্যান্য ডিভাইসেও।

 

সম্প্রতি কাকতাড়ুয়া টেকনোলজি এবং ডেভেলপমেন্ট লিমিটেডের সিইও তানভীর হাসান সৌরভের আলোচনায় জানা গেল অ্যাপলিকেশনটির সব খুঁটি নাটি বিষয়। তানভীরের পুরো দলই অক্লান্ত পরিশ্রম করেছে অ্যাপ্লিকেশনটি দাঁর করানোর জন্য। কাকতাড়ুয়ার তৈরি করা এই লাইভ টিভি অ্যাপ্লিকেশনটি এরই মধ্যে প্রতিদিন প্রায় ৮০০০ মানুষ ব্যবহার করছেন।সাড়া বিশ্বে এই অ্যাপ্লিকেশন ব্যবহারকারীর সংখ্যা প্রায় ৮ লাখ। বিশ্বের প্রায় ২৫টি দেশে ব্যবহার করা যাচ্ছে এই অ্যাপ্লিকেশন। ফ্রি এবং প্রিমিয়াম দুই শ্রেণীর গ্রাহকদের জন্য সেবা দিয়ে যাচ্ছে এই অ্যাপ্লিকেশনটি। বাংলাদেশ এবং বিশ্বের অন্যতম সেরা মিডিয়া আর্কাইভ হিসেবে আত্মপ্রকাশ করতে যাচ্ছে লাইভ টিভি ওয়ার্ল্ড।

collage

বাংলাদেশের আইসিটি মন্ত্রণালয়ের আয়োজিত জাতীয় হ্যাকাথন ২০১৪ তে রানার্স আপ হয়েছিল কাকতাড়ুয়া। বাংলাদেশের বাইরে বিশ্বের অন্যতম বড় প্রতিযোগিতা টেলিনর ডিজিটালে বাংলাদেশ রাউন্ডে চ্যাম্পিয়ন এবং নরওয়েতে রানার্স আপ পদক জিতে নেন। জাতীয় মোবাইল অ্যাপ্লিকেশন প্রতিযোগিতা ২০১৪তে নির্বাচিত হয়েছিল এই অ্যাপ।

 

বর্তমানে এই অ্যাপ্লিকেশনে ২১৭ টি অনিবন্ধিত চ্যানেল সহ নিবন্ধন করা ১৬টি ভারতীয় চ্যানেল এবং আটটি বাংলাদেশী চ্যানেল দেখার সুযোগ থাকছে। বিটিভি আর্কাইভের ১৯৬৪ সাল থেকে এখন পর্যন্ত সব প্রোগ্রাম দেখতে পারার একটি নতুন চুক্তি সাক্ষর করেছে অ্যাপ্লিকেশনটি। এবছরের জুনে গ্রামীনফোনের জিপি টিভির সাথে এই আপ্লিকেশনও চালু করার জন্য গ্রামীণফোনের সাথে চুক্তি সাক্ষর করেছে কাকতাড়ুয়া।

৩৮০ কেবিপিএসের কম স্পিডেও স্ট্রিমিং করে দেখা যাবে এই অ্যাপ্লিকেশনের টেলিভিশন চ্যানেলগুলো।ক্লাউডের মাধ্যমেও কাজ করে এই অ্যাপ্লিকেশনটি। ‘লাইভ ক্যামেরা টিভি’ নামে নতুন একটি ফিচার চালু হতে যাচ্ছে যাতে করে মোবাইল ক্যামেরা দিয়ে সরাসরি ভিডিও ধারণ করে লাইভ টিভিতে দেখানো যাবে।

Image_1

তাদের পরিকল্পনায় আছে লাইভ টিভি অ্যাপ্লিকেশনটিকে ওয়েবসাইটেও নিয়ে যেতে। কাকতাড়ুয়া স্বপ্ন দেখছে নিজেদেরকে আরও বেশী বিস্তৃত করার। মিডিয়া এবং আর্কাইভ জগতে প্রতিষ্ঠিত হতে ২০১৭ সালের মধ্যে ২৫ মিলিয়ন গ্রাহকের কাছে পৌঁছাতে চায় এই প্লাটফর্মটি।

Tousif Alam