ব্যবসা চালাতে হলে সবার আগে গ্রাহকদের নজর কাড়তে হয়। আর বর্তমান যুগে ব্লগ লেখার মাধ্যমে নিজেদের ব্যবসা সম্পর্কে সবাইকে জানানোর উপায় রয়েছে। টার্গেট জনগোষ্ঠীর কাছে পৌঁছাতে হলে তাদের মত করে কন্টেন্ট লিখলে সবচেয়ে বেশী সাড়া পাওয়া যাবে। সেদিক থেকে কন্টেন্ট মার্কেটিং আজকের যুগে দারুণভাবে কাজে আসছে।

অনেক ব্যবসা প্রতিষ্ঠানই আছে যারা নিজেদের ব্লগ চালিয়ে অনেক বেশী জনপ্রিয় হয়েছে। কেউ কেউ আবার পরিকল্পনা করছেন প্রতিষ্ঠানের নিজস্ব ব্লগ খোলার জন্য। যাদের ব্লগ আছে বা যারা নতুন ব্লগ খুলতে চাচ্ছেন তারা দেখে নিতে পারেন কিভাবে আপনার বিজনেস ব্লগকে আরও আকর্ষনীয় করা যায়।

 

 

টার্গেট জনগোষ্ঠীর চাহিদা অনুযায়ী কন্টেন্ট প্রকাশ,

 

টার্গেট জনগোষ্ঠীর চাহিদা অনুযায়ী কন্টেন্ট প্রকাশ করতে। মনে রাখতে হবে, আপনার ব্যবসা যে বিষয়টি নিয়ে সেই বিষয়ের মধ্য থেকেই পাঠকদের আগ্রহী করে তোলার মত করে কন্টেন্ট লিখতে হবে ব্লগে। সহজ ভাষায় কন্টেন্ট লিখলে সবাই বুঝতেও পারবে, সেই সাথে সব শ্রেণীর মানুষের কাছে গ্রহণযোগ্যতা পাবে। ব্লগের ডিজাইনও সব পাঠকের জন্য সহজে বোধগম্য হতে হবে।

 

 

ব্লগে নিয়মিত লেখা পোস্ট করতে হবে,

 

সব কিছুই যখন একটি প্রক্রিয়ার মধ্য দিয়ে চলতে থাকে তখন সেই কাজটি দেখতে অনেক গোছানো মনে হয়। ঠিক তেমনি যখন একটি ব্লগে নিয়মিত লেখা পোস্ট করা হয় তখন সেই ব্লগটি দেখলেও সচল মনে হয়। যে কোন পাঠক সচল ব্লগে চোখ রাখতে পছন্দ করে। তাই নিয়মিত কন্টেন্ট প্রকাশ না করলে একসময়ে দেখা যাবে ব্লগটি বন্ধ হয়ে যাবে।

 

গুরুত্বপূর্ন খবর এড়িয়ে যাওয়া উচিত নয়,

 

ব্লগ লেখার সময় চলতি টপিকের উপর সবচেয়ে বেশী গুরুত্ব রাখতে হবে। কারণ চলতি টপিক নিয়ে ব্লগে আলোচনা থাকলে পাঠকদেরও অংশ নেয়ার সুযোগ থাকে। সবচেয়ে বড় কথা আপনার ব্লগের পাঠকরাই পরবর্তিতে ক্লায়েন্ট হয়ে যেতে পারে। তাই পাঠকদেরকে খুশী করার মত কন্টেন্ট প্রকাশ করতেই হবে। ভিডিও এবং স্পষ্ট ছবি পোস্ট করে পাঠকদেরকে আরও বেশী আকৃষ্ট করা যায়। তবে অবশ্যই কোম্পনির নিজস্ব স্ট্যান্ডার্ড মেনে কন্টেন্ট প্রকাশ করা জরুরী।

 

বিশেষজ্ঞ লেখকদের লেখা প্রকাশ করা যেতে পারে,

যার ভাল ব্লগ লেখে বা বড় বড় কোম্পনির প্রতিষ্ঠাতা কিংবা সিইও হিসেবে কর্মরত আছেন তাদের ব্যবসা সংক্রান্ত লেখা যোগ করতে পারেন। এতে করে পাঠকদের আগ্রহ আরও বেড়ে যাবে।

Tousif Alam