প্রফেশনাল কাজের ক্ষেত্রে সহকর্মীদের সাথে অনেক সময়ই অনেক কথা এবং কাজের ব্যাপার শেয়ার করতে হয়। আবার মাঝে মাঝে নিজের মনের কথাও শেয়ার করা হয়ে যায়। কিন্তু অনেক ধরণের তথ্য সব সময় সব সহকর্মীদের জানাতে হয় না। এতে দেখা যায় নিজের ক্যারিয়ারের জন্য খারাপ প্রভাব পড়ে।

 

ট্যালেন্ট স্মার্টের এক রিসার্চে উঠে আসে ক্যারিয়ারে সফল ৯০% মানুষ কাজের ক্ষেত্রে অনেক কথায় চেপে যায়। আজকের আর্টিকেলে দেখে নিন আপনার সফল ক্যারিয়ারের জন্য সহকর্মীদের সাথে কি কি তথ্য শেয়ার করা যাবে না,

 

কখনই জানানো যাবে না যে আপনি আপনার কাজকে ঘৃণা করেন,

 

‘এই চাকরি আমি ঘৃণা করি’ যখনই আপনি এই কথাটি আপনার সহকর্মীদের সাথে শেয়ার করবেন তখনই তারা বুঝে যাবে আপনি এই কাজে স্বাচ্ছন্দ্য বোধ করছেন না। এতে করে আপনার প্রতি একটি নেগেটিভ চিন্তা চলে আসবে সবার। কোন এক সময় আপনার বসও বুঝে যাবে চাকুরীর প্রতি আপনার কোন আগ্রহ নেই।

 

অন্যকে হেও করা যাবে না,

প্রত্যেক অফিসে এমন অনেক স্টাফ আছে যারা কাজে কিছুটা পিছিয়ে আছে। আমরা অনেকেই সবার সামনে সেই স্টাফকে ছোট করে নিজেরা বড় হতে চাই। এতে করে আপনার অন্য সহকর্মীরা আপনার উপর কিছুটা হলেও বিরূপ ধারণা পোষণ করবে।

 

সহকর্মীদের নিজের বেতন বলা যাবে না,

 

আপনি কত টাকা বেতন পান সেটা সহকর্মীদের জানানো উচিত নয়। কারণ এতে করে আপনার বেতন অনুযায়ী প্রতিক্রিয়া দেখানো শুরু করবে সহকর্মীরা।

 

সহকর্মীদের রাজনৈতিক এবং ধর্মীয় অনুভূতি নিয়ে কথা বলা উচিত নয়,

 

প্রত্যেকেরই আলাদা ধরণের রাজনৈতিক এবং ধর্মীয় ধ্যান ধারণা থাকতে পারে। এই দুটি বিষয় সবার জন্যই বেশ স্পর্শকাতর ব্যাপার।তাই কখনই অন্য সহকর্মীদের রাজনৈতিক এবং ধর্মীয় অনুভূতি নিয়ে কথা বলা উচিত নয়। কারণ অনেক সময় এই বিষয়গুলো নিয়ে তর্ক বিতর্ক অনেক দূর গড়িয়ে যায়।

 

পরিবার এবং ব্যক্তিগত বিষয় সম্পর্কে বুঝে কথা বলা,

 

 

সহকর্মীদের পরিবার এবং ব্যক্তিগত বিষয় সম্পর্কে কথা বলার আগে একটু চিন্তা করে বলা উচিত। এমনকি নিজের পরিবার এবং ব্যক্তিগত বিষয় সম্পর্কে সবাইকে জানানোর কোন প্রয়োজন নেই।

 

অন্যের কাজের প্রতি আগ্রহ দেখানো উচিত নয়,

 

অফিসের সবার কাজের ধরন এক নয়। কেউ কেউ অনেক বেতন পেলেও তুলনামূলক সহজ কাজ করে থাকে। এই বলে সবার সামনে বলা যাবে না যে, আমি সেই কাজটি করতে চাই। অফিসের সহকর্মীদের সাথে কাজের পরিবেশ খারাপ করে দেয় এমন আচরণ।

 

খুব বেশী পুরনো দিনের কথা আলোচনা করা উচিত নয়,

 

অনেকেই অফিসের কাজের মধ্যে শুধু নিজেদের পুরনো দিনের কথাই টেনে নিয়ে আসে।কিন্তু আমাদের বুঝতে হবে বেশীরভাগ মানুষই আপনার আগের দিনের কথা জানতে আগ্রহী না।

 

সহকর্মীদের নিয়ে অযথা হাসি তামাশা করা যাবে না,

অফিসে কিছু না কিছু হাসি তামাশা না করলে কাজের মনোযোগ আসে না। তাই কাজের সময় কিছুটা সময় ব্রেক নেয়াই যায়। তবে এই বলে সহকর্মীদের নিয়ে হাসি তামাশা করা যাবে না। কারণ প্রায়ই দেখা যায় অনেকে এই ছোট খাট হাসি তামাশাকে অনেক বড় মনে করে ফেলেন।

Tousif Alam