নতুন উদ্যোক্তাদের জন্য ‘গুগলের’ মত সেবা দেয়ার লক্ষ্য নিয়ে কাজ শুরু করেছে স্টার্ট আপ ডায়েরি। যদি আপনি নতুন কোন ব্যবসা শুরু করতে চান বা নতুন কোন ব্যবসা চালাচ্ছেন তারা স্টার্ট আপ ডায়েরিতে চোখ রাখতেই পারেন।

 

বিজনেস প্ল্যানিং,এনালাইসিস, গ্লোবাল এঙ্গেল ইনভেস্টমেন্ট, বিনিয়োগকারীদের নতুন প্রতিষ্ঠানে বিনিয়োগ করতে আগ্রহী করে তুলতে এবং নেটওয়ার্কিং-এ সাহায্য করতে কাজ করে যাচ্ছে স্টার্ট আপ ডায়েরি।

lamia-zannat1-300x150

অনুপ্রেরনাদায়ি দুজন মহিলা উদ্যোক্তা লামিয়া জে ইশিতা এবং শাম্মা এম রাঘিব মিলে প্রতিষ্ঠা করেছে এই কোম্পানি।এবার লামিয়ার মুখেই শোনা যাক প্রতিষ্ঠান সম্পর্কে বিভিন্ন তথ্য,

 

নিজেদের এবং প্রতিষ্ঠান সম্পর্কে লামিয়া বলেন-

বর্তমানে আমি প্রাইভেট ফিনান্সিয়াল কোম্পানিতে কাজ করছি। তার আগে আমি ডেইলি স্টারের স্টার ক্যাম্পাস এবং লাইফ স্টাইল ম্যাগাজিনের স্টাফ কন্ট্রিবিউটর হিসেবে কাজ করেছি।আমি বিবিসি, ওয়ার্ল্ড ব্যাংক এবং ইউনিসেফের হয়েও কাজ করেছি।

ইংল্যান্ড ভিত্তিক রিসার্চ কোম্পানিতে রিপ্রেসেন্টেটিভ হিসেবে কাজ করেছি। সেখানে তিন মাস ব্যাপী বিভিন্ন ইন্টার্ভিউ সেশনে অংশগ্রহণ করার অভিজ্ঞতাও আছে আমার।

একবার এক ইন্টার্ভিউ বোর্ডে আমাকে জিজ্ঞেস করেছিল, সমাজের অনেক বাঁধা ভেঙ্গে কাজ করে যাচ্ছেন আপনি। এর পরিবর্তে আপনি সমাজকে কি দিচ্ছেন? তার উত্তরে আমি হ্যাঁ না কিছুই বলতে পারেনি।

 

   স্টার্ট আপ ডায়রি ডট কমের পেছনের গল্প সম্পর্কে বলেন-

আমার সহকর্মী শাম্মাকে নিয়ে স্টার্ট আপ ডায়েরির পথচলা। আমরা আমাদের পরিশ্রম দিয়ে দাঁর করাতে চাই এই প্রতিষ্ঠানটিকে। দুজন মিলে নিজেদের বুদ্ধির সংমিশ্রণ করে এগিয়ে নিয়ে যাচ্ছে এই প্রতিষ্ঠানটিকে।

 

আমাদের এই প্রতিষ্ঠানের মাধ্যমে নতুন নতুন উদ্যোগকে প্রতিষ্ঠিত করাতে চাই। এই আইডিয়া যখনই এসেছিল তখনই চিন্তা করেছিলাম উদ্যোক্তাদের নিয়ে কিছু করতে। তাদেরকে সঠিক দিক নির্দেশনা দিতেই কাজ করছি আমরা।

 

টিম সম্পর্কে এবং স্টার্ট আপ ডায়েরির লক্ষ্য সম্পর্কে তিনি বলেন-

আমার সহযোগি শাম্মা বেলজিয়ামে থেকে এই সাথে কাজ করে যাচ্ছে। আমি বাংলাদেশে থেকে এই ব্যবসা পরিচালনা করছি। এভাবে আমরা চাই আমাদের ব্যবসাকে বিশ্বব্যাপী পরিচিত করে তুলতে।

এছাড়াও আমাদের আরেকটি লক্ষ্য হল মহিলা উদ্যোক্তাদের আরও বেশী করে উৎসাহিত করা।

 

স্টার্ট আপ ডায়েরির কাজের প্রক্রিয়া সমর্পকে তিনি বলেন-

 

আমাদের কাজের প্রক্রিয়া গুলো  তিনিটি শ্রেণিতে ভাগ করতে পারি।

১। রিসোর্স বুস্টার

প্রথমেই নতুন উদ্যোগ সম্পর্কে আমরা ধারণা নিয়ে নেই। এরপর দেখি কি কি উপায়ে এই ব্যবসাটিকে প্রতিষ্ঠিত করা যায়।

২। সোট এবং নিড এনালাইসিস-

বিভিন্ন এনালাইসিস করে ঠিক করি কি কি রিসোর্স প্রয়োজন পড়বে এই নতুন ব্যবসায়। একটি নতুন ব্যবসা মুখ তুলে দাঁড়াতে ফিন্সিয়াল নলেজ/গ্রুমিং/পিচিং এর মত যা কিছু দরকার হয় সব ধরণের সহায়তে করে থাকি আমরা। সফল উদ্যোক্তা গড়ে তূলতে একটি উদ্যোগকে দাঁর করাতে চাই আমরা।

৩। এঙ্গেল ইনভেস্টরদের কাছে নতুন উদ্যোক্তাদের তুলে ধরা

নতুন নতুন ব্যবসার ধরণ অনুযায়ী উদ্যোক্তাদের এঙ্গেল ইনভেস্ট্রদের কাছে পরিচিত করিয়ে দেই আমরা। ইনভেস্টরদের প্রয়োজনীয়তা এবং দরকার অনুযায়ী ডাটাব্যাজ সংগ্রহ করে তুলে ধরি আমরা।

 

বাংলাদেশের নতুন উদ্যোক্তাদের কিভাবে স্টার্ট আপ ডায়েরি সাহায্য করতে পারে সে সম্পর্কে বলেন-

 

আমার ব্যক্তিগত অভিজ্ঞতা থেকে বলছি, বাংলাদেশের বেশীরভাগ উদ্যোক্তাদেরই আইডিয়া থাকে দারুণ কিন্তু সঠিক বুদ্ধি এবং অভিজ্ঞতা থাকার অভাবে তারা এগুতে পারে না। এখানে বেশীর ভাগ উদ্যোক্তারা শুধু নতুন কিছু করতেই বেশী উৎসাহী থাকে। কিভাবে প্রোজেক্টটিকে সফল করতে হবে, বাড়াতে হবে এবং প্রতিযোগিতায় টিকে থাকতে হবে সে সম্পর্কে অনেক কম মাথা ঘামায় তারা।

 

আমরা লাভ খরচ, কিভাবে বেশী লাভ করা যায়, কিভাবে সুন্দর একটি ফ্রেম ওয়ার্কের মাধ্যমে ব্যবসাকে লাভজনক করা যাবে সেসব বুদ্ধি দেব আমরা। এতে করে যারা নতুন ব্যবসা শুরু করে কোন কুল কিনারা করতে পারে না তাদেরকে সঠিক পথে নিয়ে আসি আমরা। আমাদের পরামর্শ নিয়েই বাংলাদেশের প্রতিষ্ঠান গুলো নিজেদেরকে আরও সম্প্রসারিত করতে পারবে, সেই সাথে প্রতিযোগিতামূলক বাজারে টিকেও থাকতে পারবে।

 

এসডি এশিয়ার পাঠকদের উদ্দেশে লামিয়া বলেন-

নতুন উদ্যোক্তাদের জন্য ইঞ্জিনের তেলের মতই কাজ করবে আমাদের প্রতিষ্ঠানটি। তাই  এসডি এশিয়ার পাঠকদের উদ্দেশে বলতে চাই ভয়কে জয় করে- ব্যথাকে শক্তিতে পরিণত করে স্বপ্নকে সত্যি করে তুলতে। আর নতুন উদ্যোক্তাদের সাহায্য করতে আমরা তো আছেই।

স্টার্ট আপ ডায়রির ঠিকানা-

ওয়েবসাইট:www.startup-diary.com

ফেসবুক পেজ: www.facebook.com/startupdiaryblog

ইমেইল : lamea.ish@icloud.com, shamma.m.raghib@gmail.com

Tousif Alam