স্টার ট্র্যাক সিরিজের জনপ্রিয় চরিত্র ‘স্পক’-এর আসল নাম লিয়োনার্দো নিময়। অভিনয় ছাড়াও তিনি ট্যাক্সি ক্যাব ড্রাইভার, ফটোগ্রাফার, লেখক এবং ফিলান্থ্রোপিস্ট হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন। ব্যক্তি জীবনে তিনি একজন সফল বাবা এবং স্বামী হিসেবেও দায়িত্ব পালন করেছেন। অনেক ধরণের বাঁধা বিপত্তি পার করে নিজেকে সফল অভিনেতা হিসেবে প্রকাশ করতে পেরেছেন তিনি। সম্প্রতি পরলোক গমন করেছেন এই হলিউড অভিনেতা। তার জীবনে এমন অসংখ্য অভিজ্ঞতা এবং ত্যাগ থেকে এসডি এশিয়ার পাঠকদের জন্য পাঁচটি সেরা শিক্ষণীয় দিক তুলে ধরা হল।

 

কখনই নিরুৎসাহিত হওয়া যাবে না

 

১৯৫৬ সালের শুরুর দিকে নিময় তার স্ত্রী এবং বাচ্চাদের ভরণ পোষণের যোগান দিতে ট্যাক্সি ক্যাব চালানো শুরু করেন। সে সময় তিনি পুরো দমে অভিনেতা হতে চেষ্টা করে যাচ্ছিলেন। একবার ম্যাসেচুসেটসের জুনিয়র সিনেটর জন কেনেডিকে পৌঁছে দেয়ার সময় নিময় নিজেকে ‘স্ট্রাগলিং এক্টর’ বলে পরিচয় দেন। সেজন্য কেনেডি বলেন, ‘ ভাল কাজের জন্য সব সময় কোন না কোন সুযোগ আসবেই’। তাই খারাপ সময়ে কখনোই ভেঙ্গে পড়া উচিৎ নয়। ভাল কিছু করার জন্য চেষ্টা করে যেতে হবে।

 

অতীতের খারাপ সময়কে ভুলে যেয়ে সামনে এগিয়ে যেতে হবে

 

জীবনে চলার পথে বারবার পুরনো সৃতি এসে ভিড় করে। সেসব নিয়ে চিন্তা করতে করতে অনেক সময় বর্তমান সময়ে উন্নতি করা সম্ভব হয় না। অর্থোডক্স জোয়িশ পরিবারে বেড়ে ওঠা নিময় সব সময় অতীত থেকে শিক্ষা নিয়েছিলেন। ঠিক তেমনি অতীতের এমন অনেক কিছুই আছে যেগুলো আমরা ঠিক যেভাবে করতে চেয়েছি সেভাবে করতে পারেনি।বর্তমানে ক্রমাগত ব্যর্থতায় আমরা সেসব ভুলে যেতে চাই। কিন্তু আমরা শত চেষ্টা করলেও অতীতকে মুছে ফেলতে পারব না। তাই অতীত থেকে শিক্ষা নিয়ে আমাদেরকে সামনের পথে এগিয়ে যেতে হবে।

 

পছন্দের কাজ আরও মনোযোগ দিয়ে করা

 

শিল্পের বেশ কিছু যায়গায় কাজের অভিজ্ঞতা আছে নিময়ের। একাধারে অভিনেতা, অভিনয়ের শিক্ষক এমনকি ফটোগ্রাফার হিসেবেও কাজ করেছেন তিনি। ‘স্পেস মিউজিক’ নামে ১৯৬৭ সালে একটি গানের এ্যালবামও রয়েছে তার। স্থানীয় টিভিতেও কাজ করেছেন তিনি। বলা যায় একহাতে অনেক কিছুই সামলেছেন নিময়।আমরা অনেকেই বিভিন্ন কাজ করে নিজেদেরকে প্রতিষ্ঠিত করতে চাই। সঠিক উদ্যোগের অভাবে অনেক সময়ই আমরা আমাদের সাধ্যমত কাজ করতে পাড়ি না। তাই সবার উচিৎ নিজেরা যা করতে পছন্দ করি তা নিয়েই সামনে এগিয়ে যাওয়া।

 

সব সময়ই ভবিষ্যতে নতুন কোন সম্ভাবনা আসবে এবং সেটার জন্য প্রস্তুত থাকতে হবে

 

একসময় ফটোগ্রাফিকে সিরিয়াস পেশা হিসেবে নিয়েছিলেন নিময়। কিন্তু শেষ পর্যন্ত অভিনয় দিয়েই বিশ্ব ব্যাপী পরিচিতি পেয়েছিলেন তিনি। তাই নিজের অভিজ্ঞতা এবং আত্মবিশ্বাসকে কাজে লাগিয়ে নতুন অভিজ্ঞতা অর্জনের দিকে এগিয়ে যেতে হবে। নতুন কাজে সফলতা আনতে আত্মবিশ্বাসকে কাজে লাগাতেই হবে।

 

অন্যদের কথা ভুলে যাওয়া চলবে না

শুধু নিজের কাজ করেই সব দায়িত্ব শেষ হয়ে যাবে না। সাড়া পৃথিবীর মানুষের কথাও মাথায় রাখতে হবে।অনেক টাকা- পয়সা উপার্জনের পর নিময় শুধু রাজনীতি করেই তার শেষ জীবন পার করেননি।শেষ বয়সে এসে তিনি দাতব্য প্রতিষ্ঠানে নিজের টাকা বিলিয়ে দিয়েছিলেন।

 

লিয়োনার্দো নিময়ের জীবনের দর্শন অনুযায়ী কাজ করলে নিজের উন্নয়নের সাথে সাথে সামাজিক উন্নয়নও সম্ভব হবে।

Tousif Alam