সামাজিক ও ব্যক্তিগত যোগাযোগের জন্য ব্যবহার করা অ্যাপ্লিকেশন ‘লাইন’ এখন কর্পোরেট ডোমেইনে প্রবেশ করেছে। তাদের কর্পোরেট ডোমেন Line@ নামে বিশ্বব্যাপী চালু হয়েছে।

 

নতুন এই অ্যাপ্লিকেশনটি এন্ড্রয়েড চালিত মোবাইল সিস্টেম, আইওএস এমনকি পার্সোনাল কম্পিউটারেও ব্যবহার করা যায়।ব্যবহারকারীরা একটা একাউন্ট খুলে সেখান থেকে ফলোয়ারদের প্রতি মাসে এক হাজারেরও বেশী ম্যাসেজ পাঠানো হয়। এখানে সাইন আপ করতে কোন টাকা খরচ করতে হয় না। এখানে আরও একটি সুবিধা আছে, এই অ্যাপ্লিকেশনের মাধ্যমে একই প্রতিষ্ঠানের সবাই তাদের নিজেদের কোম্পানির অফিসিয়াল একাউন্টে সাইন আপ করতে পারে। সেক্ষেত্রে যে কোন প্রতিষ্ঠানই তার ফলোয়ারদের টাইমলাইনে পোস্ট করতে পারে এবং গ্রুপ ম্যাসেজ পাঠাতে পারে। পৃথিবীর বিভিন্ন জায়গার বিভিন্ন ভাষাভাষীদের সুবিধার জন্য Line@ অ্যাপ্লিকেশনটি চাইনিজ, ইংলিশ, ফ্রেঞ্চ, জার্মান, হিন্দি, ইতালিয়ান,জাপানিজ, কোরিয়ান,মালয়,পর্তুগিজ,রাশিয়ান,স্প্যানিশ এবং থাই ভাষায় সংস্করণ করা হয়েছে। সব সব কোম্পানিতেই কাজ করার উপযুক্ত হিসেবে ব্যবহার করা যাবে এই অ্যাপ্লিকেশনটি।

 

কিন্তু অনেক অফিসের কাজের ক্ষেত্রে শুধু এক হাজার ম্যাসেজ পাঠালেই কাজ শেষ হয়ে যায় না। একটু বেশী টাকা খরচ করলে প্রতি মাসে পঞ্চাশ হাজার ম্যাসেজ এবং এর বেশী হলে ০.০১ মার্কিন ডলারের বিনিময়ে প্রতিটি ম্যাসেজ পাঠাতে পারবে যে কোন প্রতিষ্ঠান।সাধারণত Line@ অ্যাপ্লিকেশনটি দিয়ে আট অক্ষরের নামের একাউন্ট খোলা যায় এবং সার্চ দিয়েও খুঁজে পাওয়া যায় না এই অ্যাকাউন্ট গুলোকে।আরও সুবিধা আছে এতে।প্রথম বছর ২৪ মার্কিন ডলার এবং এর পরের বছর থেকে ১২ মার্কিন ডলার খরচ করে ১৬ অক্ষরের নামের একাউন্ট রেজিস্টার্ড করা যায় যেটিকে সার্চ দিলেও খুঁজে পাওয়া যাবে।

 

এখনও Line@ অ্যাপ্লিকেশনটি যোগাযোগের ক্ষেত্রে শীর্ষ স্থানীয় অ্যাপ্লিকেশন হিসেবে আত্মপ্রকাশ করতে পারে নি। ‘উইচ্যাট’ অ্যাপ্লিকেশনটি অনেকটা এমন কাজই করে থাকে। কিন্তু তারপরও বিশ্বব্যাপী Line@ অ্যাপ্লিকেশনটি এখন নিজেদের পরিচিত করতে চেষ্টা করে যাচ্ছে। খুব শীঘ্রই হয়তো তারা অন্যদের পেছনে ফেলে সামনে এগিয়ে যাবে।

Tousif Alam